মানুষ ও প্রাণীর আচরণ পর্যবেক্ষণে মনোবিজ্ঞানের ভূমিকা আলোচনা কর

“সাধারণভাবে সকল প্রকার আচরণ মনোবিজ্ঞানের আলোচ্য বিষয়াবলির মধ্যে অন্তর্ভুক্ত” উক্তির মূল্যায়ন কর।

উত্তর:

ভূমিকা : মনোবিজ্ঞান হলো আচরণ ও মানসিক প্রক্রিয়ার বিজ্ঞান। আচরণ ও মানসিক প্রক্রিয়া নিয়েই মানবজীবন। মানবজীবন সম্বন্ধীয় যাবতীয় বিষয় ও ঘটনা জানতে হলে মানুষের আচরণ ও তার মানসিক কার্যকলাপ সম্বন্ধে জানতে হবে। মনোবিজ্ঞান হলো প্রাকৃতিক বিজ্ঞানের একটি পরীক্ষণমূলক শাখা, যার উদ্দেশ্য হলো মানুষ ও আচরণ সম্পর্কে ঘোষণা করা। আচরণ সম্পর্কে ভবিষ্যদ্বাণী করা এবং নিয়ন্ত্রণ করা। সম্প্রতি সময়ে নানা বিষয় মনোবিজ্ঞানের আলোচ্য বিষয়ে পরিণত হয়েছে।

মনোবিজ্ঞানের বিষয়বস্তু : সাধারণভাবে সকল প্রকার আচরণ মনোবিজ্ঞানের আলোচ্য বিষয়াবলির মধ্যে অন্তর্ভুক্ত এ উক্তির আলোকে মনোবিজ্ঞানের বিষয়বস্তু আলোচনা করা হলো :

১. শিক্ষণ : শিক্ষণ মানুষকে তার আচরণ নিয়ন্ত্রণ করে এবং ব্যক্তিকে সামাজিক ও যুগোপযোগী করে গড়ে তোলে। তাই শিক্ষণ সম্পর্কিত মতবাদ, শিক্ষণের শ্রেণিবিভাগ, কি কি নিয়ম অভ্যাস করলে শিক্ষণ সহজ হয় প্রভৃতি মনোবিজ্ঞানের বিষয়বস্তুর অন্তর্ভুক্ত। শিক্ষণ ব্যক্তিত্বের বিকাশ ঘটায়।

২. ব্যক্তিত্ব : মনোবিজ্ঞান মানুষের ব্যক্তিত্ব নিয়ে আলোচনা করে। ব্যক্তির যাবতীয় আচরণের সামাজিক রূপই ব্যক্তিত্ব। ব্যক্তিত্বের স্বরূপ, এর উপাদান, শ্রেণিবিভাগ, বিকাশ, শ্রেণিবিভাগ, ব্যক্তিত্বের পরিমাপ প্রভৃতি মনোবিজ্ঞানের বিষয়বস্তুর অন্তর্ভুক্ত।

৩. বুদ্ধি : আচরণের মাধ্যমেই বুদ্ধির বিকাশ ঘটে। বুদ্ধির পরিচায়ক কি, আচরণসমূহ কি, বুদ্ধি কিভাবে আচরণকে প্রভাবিত করে, কিভাবে বুদ্ধি পরিমাপ করা যায় বুদ্ধি অভীক্ষা ও তার উন্নতি কিভাবে হয় প্রভৃতি মনোবিজ্ঞানের আলোচ্য বিষয়বস্তু ।

৪. স্মৃতি-বিস্মৃতি : কোনো কোনো ঘটনা আমরা বেশি দিন স্মৃতিতে ধরে রাখতে পারি। আবার কোনো কোনো ঘটনা আমরা দ্রুতই ভুলে যায়ই। কাজেই কোন বিষয়গুলো স্মৃতিতে বেশি স্থায়ীও অস্থায়ী হয় তার জন্য স্মৃতি-বিস্মৃতি মনোবিজ্ঞানের অন্যতম বিষয়বস্তু ।

৫. অন্তঃক্ষরা গ্রন্থী : অন্তঃক্ষরা গ্রন্থী নিঃসৃত হরমোনের আধিক্য বা স্বল্পতার কারণে আচরণ বিশেষভাবে প্রভাবিত হয়ে থাকে। তাই অন্তঃক্ষরার বিষয়বস্তু মনোবিজ্ঞানের আলোচ্য বিষয়।

৬. স্নায়ুতন্ত্র : আমাদের পঞ্চেন্দ্রিয় চক্ষু, নাসিক্য, জিহ্বা, ত্বক, কর্ণ-স্নায়ুর সাহায্যে কেন্দ্রীয় স্নায়ুতন্ত্রের সাথে যুক্ত। মানুষের সামগ্রিক আচরণই নিয়ন্ত্রণ হয়ে থাকে স্নায়ুতন্ত্রের দ্বারা। কোন ধরনের স্নায়ু কোন বিশেষ আচরণকে প্রভাবিত করে, বা কোন গ্রন্থী কোন বিশেষ অঙ্গের উপর কাজ করে আচরণের কি ধরনের পরিবর্তন ঘটাই সে সকল আলোচনা মনোবিজ্ঞানের বিষয়বস্তুর অন্তর্ভুক্ত।

Also Read,

৭. প্রত্যক্ষণ : সংবেদন কি করে আমাদের চেতনা জাগিয়ে সাড়া জাগায়, কিভাবে প্রত্যক্ষণ সংঘটিত হয়, প্রত্যক্ষণ কিভাবে প্রতিক্রিয়া হয় এর নীতিমালা কি, ভ্রান্ত ও অলীক প্রত্যক্ষণের পার্থক্য প্রভৃতি মনোবিজ্ঞানের আলোচ্য বিষয়ের অন্তর্ভুক্ত।

৮. সামাজিক পরিবেশ : মনোবিজ্ঞান যখন মানুষের আচরণ নিয়ে আলোচনা করে তখন সেই আলোচনা সামাজিক প্রাকৃতিক পরিবেশের সংগে যুক্ত করে থাকে। সামাজিক পরিবেশের সঙ্গে ব্যক্তির ক্রিয়া-প্রতিক্রিয়ার মাধ্যমে তার আচরণের বৈশিষ্ট্য প্রকাশ পায়। ব্যক্তির সামাজিকীকরণ, তার মনোভাব, ব্যক্তিমন, গোষ্ঠীমন, জনতার আচরণ, প্রচারণা প্রভৃতি সামাজিক দিক ও মনোবিজ্ঞানে আলোচনা করা হয় ।

৯. আচরণে অস্বাভাবিকতা : অস্বাভাবিকতা কি এবং তা কিভাবে আচরণের উপর প্রভাব বিস্তার করে। অস্বাভাবিক আচরণের প্রকারভেদ, তার লক্ষণ ও কারণ এবং এর উপশমের ব্যবস্থা, প্রভৃতি মনোবিজ্ঞানের আলোচনার বিষয়ভুক্ত।

১০. শিল্পক্ষেত্রে আচরণ : কলকারখানায় দক্ষ লোক নিয়োগ, শ্রমিক, অসন্তোষের কারণ নিরূপণ করে যথোপযুক্ত ব্যবস্থা গ্রহণ, চাহিদা অনুযায়ী উৎপাদন এবং উৎপাদিত দ্রব্যের বা বাজারজাতকরণ প্রভৃতি ক্ষেত্রের আচরণ অনুধ্যানেও মনোবিজ্ঞান এক বিশেষ ভূমিকা পালন করে।

১১. শিক্ষাক্ষেত্রে আচরণ : কোনো পদ্ধতিতে সহজে এবং সাহসিকভাবে শিক্ষাদান করা যায়, ছাত্র অসন্তোষের কারণ নির্ণয় ও প্রতিকার, ছাত্রদের যুগোপযোগী পাঠ্যসূচি প্রণয়ন প্রভৃতি মনোবিজ্ঞানের আলোচ্য বিষয়ের অন্তর্ভুক্ত।

১২. শিশু আচরণ : শিশুর বয়োবৃদ্ধির ও শারীরিক পরিবর্তনের সঙ্গে সঙ্গে তার আচরণের পরিবর্তন ঘটে। শিশুর আচরণের বিভিন্ন দিক, শিশুর লালন-পালন, শিশুর আচরণে পিতামাতার ভূমিকা, শিশুর ব্যক্তিত্ব গঠন প্রভৃতি সম্পর্কে মনোবিজ্ঞান আলোচনা করে।

১৩. উপদেশ নির্দেশনা : মানসিক বিশৃঙ্খলা, বৃত্তি নির্বাচন, শিল্প সংকট, বিফলতা, হতাশা প্রভৃতি ক্ষেত্রে মনোবিজ্ঞানীগণ উপদেশ ও নির্দেশনা দিয়ে এসকল সমস্যা কাটিয়ে কিভাবে সুন্দর জীবন যাপন করা যায় তার ব্যবস্থা করে থাকেন। তাই উপদেশ নির্দেশনা মনোবিজ্ঞানের অন্যতম আলোচ্য বিষয়।

১৪. প্রাণী আচরণ : মানুষের আচরণ ও মানসিক ক্রিয়া অনুধ্যানেই মনোবিজ্ঞান সীমাবদ্ধ নয়। প্রাণীর আচরণও মনোবিজ্ঞানের গবেষণার অন্যতম বিষয়বস্তু। মনোবিজ্ঞানের অনেক তথ্যই প্রাণীর উপর গবেষণা করে পাওয়া গেছে। তাই প্রাণীর আচরণ ও মনোবিজ্ঞানের আলোচনায় স্থান পেয়েছে।

উপসংহার : পরিশেষে বলা যায় যে, ব্যক্তির আচরণের অন্তরালে বিরাজমান সকল সার্বজনীন নিয়মাবলি ও রীতিনীতিকে পরীক্ষা-নিরীক্ষা ও নির্ভুল পর্যবেক্ষণের সাহায্যে আচরণ ও তার সঙ্গে সম্পৃক্ত সব বিষয়ই মনোবিজ্ঞানের পাঠ্য বিষয়বস্তুর অন্তর্ভুক্ত হয়েছে। তাই মনোবিজ্ঞানের পরিধি ও পরিসর ক্রমশ বৃদ্ধি পাচ্ছে। একই সাথে মানুষ ও প্রাণী ছাড়া ও অন্যান্য নানা বিষয়মনোবিজ্ঞানের আলোচ্য বিষয়বস্তুতে পরিগণিত হচ্ছে।

Leave a Comment